সেরা বোকা

ভারতীয় রামানের গল্প থেকে অনুবাদ


একদা এক রাজা বাস করত। রাজা প্রতি বছরই তাদের প্রজাদের মনোবল বাড়ানোর জন্য প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা করত।

প্রতি বছর মারিজ নামের এক প্রজা পুরুস্কার জিতে নেয়। কারন মারিজ ছিল খুবই তীক্ষ্ণ বুদ্ধির অধিকারী। রাজা প্রতি বছর নতুন নতুন ক্যাটাগরিতে পুরুস্কার ঘোষনা করে। মারিজের বুদ্ধি দেখে রাজার খুব হিংসে হয়। তাই এই বছর রাজা মারিজকে জব্দ করার জন্য এক অভিনব প্রতিযোগিতা চালু করেন।

ঘোষনা করেন যে, এই বছরের সেরা বোকা যে তাকে ১০০০হাজার স্বর্ন মুদ্রা পুরুস্কিত করা হবে।এর ই মধ্যে রাজা আরেকটি প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা করেন, প্রতিযোগিতার নিয়ম হচ্ছে, একটি বদ্ধ ঘর থাকবে ঘড়ের মধ্যে অনেক মুদ্রা থাকবে, ঘড়টিতে যাবে যে রাস্তা দিয়ে সেই রাস্তা কাটা দিয়ে ঢাকা থাকবে। প্রতিযোগিতার দিন আসল,সকল প্রজাগন অংশগ্রহন করল কিন্তু মারিজ অংশগ্রহন করল না।তাই অন্য কেউ বিজয়ী হল। যখন প্রতিযোগিতার সময় শেষ তখন মারিজ আসল, রাজা বললঃ

-মারিজ তোমার কি স্বর্ন মুদ্রার প্রয়োজন নেই?

মারিজ বললঃ

-অবশ্যই প্রয়োজন, টাকার জন্য আমার স্ত্রীর চিকিৎসা করাতে পারছি না।

রাজা উচ্চস্বরে হেসে বলে,

-যার টাকার এতো প্রয়োজন সে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করে না? তুমি বোকা সত্যিই তুমি অনেক বড় বোকা।

মারিজ বললঃ

-রাজা আপনি সত্যিই বলছেন? আমি সবচেয়ে বড় বোকা?
-হ্যাঁ, মারিজ তুমিই সবচেয়ে বড় বোকা।
-তাহলে আমাকে বছরের সেরা বোকার পুরুস্কার দিন।
-রাজা,মারিজের কথা শুনে অবাক হয়ে গেল। এবং ভাবল সত্যিই তো, আমি তো সবচেয়ে বোকা যে তাকে পুরুস্কৃত করব বলেছিলাম।

রাজা তার কথা রাখলেন এবং মারিজ কে ১০০০হাজার স্বর্নের মুদ্রা উপহার দিলেন।

মোরালঃ প্রকৃত বুদ্ধিমান সব  যায়গায় বুদ্ধিমত্ত্বারই পরিচয়ই দেয়।


আমাদের উৎসাহিত করুনঃ




সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। এই লেখাটি কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয় ।

লেখক সম্পর্কেঃ

বুনন সম্পর্কিত তথ্যঃ