“””শুভাকাংখী”””{ইসলামিক তবুও ভৌতিক}

সময় রাত ১২ টা, অবরু তার পিসিটা বন্ধ করে ঘর থেকে বের হলো!
গন্তব্য পুকুর ঘাট, এখন পর্যন্ত এশার নামাজ পড়া হয়নি অবরু’র!
তাই ওযু করার জন্য পুকুর ঘাটে যাওয়া,

অবরু নিয়মিত নামাজ পড়ে কিন্তু কিছুদিন ধরে অবরু’র জামাতে নামাজ পড়া হচ্ছে না। আজান এর সময়’ই তার কোন না কোনো কাজ থাকে। যেমন ধরুনঃ ফেসবুক,কম্পিউটার,গেমস ইত্যাদি।

আর তার মাঝে প্রধান হলো ফেসবুক। সারাদিন’ই ফেসবুক নিয়ে পরে থাকে। এখনো সে ফেসবুক চালিয়ে’ই উঠলো।

অবরু ঘর থেকে বের হতেই হালকা এক গরম হাওয়া তার সমস্ত শরীল ছুয়ে গেলো। গরম ধমকা বাতাসে অবরু’র শরীর মৃদু কেপে উঠলো। শরীরের পশমগুলো কাটা দিয়ে ওঠেছে অবরু’র।

হঠাৎ করেই ফোটা ফোটা বৃষ্টি আর শিয়ালের ডাক শুরু হলো, সাথে ঘোর আন্ধকারের  সংমিশ্রণে এ যেনো এক ভূতুরে পরিবেশের সৃষ্টি! অবরু এমনিতে খুব সাহসি ছেলে। ভূত-টুত এ বিশ্বাস করেনা কিন্তু তবুও তার হালকা হালকা ভয় হচ্ছে আর মনে মনে নিজেকেই বকা দিচ্ছে কেনো সময় মতো নামাজটা পড়ে নেয়নি।

এদিক-সেদিক তাকিয়ে অবরু আবার হাটা শুরু করলো। অবরু যখন পুকুর ঘাটে পৌছালো। তার মনে হলো পুকুর ঘাটের সামনে কিছু একটা দাড়িয়ে আছে!

অবরু প্রচন্ড ভয় নিয়ে ধিরে ধিরে সামনে এগুতে লাগলো, যত’ই সে সামনে এগুচ্ছে তার বুকের ভেতরের হৃদপিণ্ড টা তত জোরে লাফিয়ে উঠছে। কিন্তু সামনে গিয়ে সে কিছুই দেখতে পেলোনা, সে নিজে নিজেই হাসতে থাকলো নিজের এই অবস্থা দেখে।

অবরু যখন পানিতে হাত দিলো ঠিক তখনি পুবদিক থেকে একটা শিয়াল খুব উচ্চস্বরে ডাকতে শুরু করলো। অবরু সে দিকে খেয়াল না দিয়ে, ওযু করা শুরু করলো। অবরু যখন ওযু এর মাঝামাঝি ঠিক তখনি সে অনুভব করলো সে আর নড়তে পারছেনা। যেন সে এক পাঁথরের মূর্তী! অবরু চিৎকার দেওয়ার চেষ্টা করলো কিন্তু তার মুখ দিয়ে কোন আওয়াজ বের হলোনা! ভয়ে অবরু’র সারা শরীর দিয়ে ঘাম ঝরতে শুরু করে দিয়েছে। হঠাৎ করে অবরু’র সামনে এক ছায়া’র আবির্ভাব হলো, ছায়াটা পানি থেকে ১ হাত উপরে হাওয়ায় বাসছে!

ভয়ে অবরু তার শরীলের সব শক্তি দিয়ে চিৎকার দিলো কিন্তু তাতে কোন লাভ হলোনা। তার মুখ দিয়ে কোন আওয়াজ ই বের হলোনা। ভয় এবং উত্তেজনায় অবরু’র শরীল কাপছিলো, তা সে অনুভব করছে। হঠাৎ করে’ই সেই ছায়া মূর্তিটা অবরু’র নাম ধরে ডাক দিলো,

ছায়া–অবরু, অবরু!
অবরু– কে,কে তুমি?{কাপা কাপা কন্ঠে অবরু জবাব দিলো }
আমার কাছে কি চাও?{অবরু নিজেই খুব অবাক হয় তার মুখ দিয়ে আওয়াজ বের হচ্ছে}

অবরু আবারো চিৎকার দিলো কিন্তু না এবারো কোন আওয়াজ বের হলো না!

ছায়া– আমি? আমি তর শুভাকাংখী!
অবরু– শুভাকাংখী!{বিস্মিত হয়ে}
ছায়া– হ্যা,নামাজ পড় তুই। জামাত এর সাথে নামাজ পড়।
মসজিদে যেয়ে নামাজ পড়।
অবরু–তুমি কে? বলো?
ভূত?
ছায়া–হা হা হা!
অবরু– হাসছো কেনো?
ছায়া–ভূত, ভূত বলতে কিছু নেই,
ভূত বলতে কিছু নেই, অবরু!
অবরু—তবে?
তবে, তুমি কে? বলো আমায়?
ছায়া– আমি,
আমি তর শুভাকাংখী।
অবরু–শুভাকাংখী!{বিস্মিত হয়ে,আবারো}

কথাটি বলতে বলতে ছায়াটা অদৃর্শ্য হয়ে যায়। অবরু চারদিক তাকিয়ে ছায়াটাকে খুজতে থাকে কিন্তু কোথাও ছায়া’টার অস্তিত্ব খুজে  পেলোনা! অবরু খেয়াল করলো সে নড়তে পারছে, অবরু তার ওযু সম্পূর্ন করে তাড়া-তাড়ি ঘরে ফিরে আসে এবং মনে মনে প্রতিজ্ঞা করলো আর কখনো সে শুধু শুধু জামাত মিস দিবে না।

 

লেখক মন্তব্যঃ আমার সকল মুসলিম ভাই ও বোনেরা উল্লিখিত গল্পটি কাল্পনিক। আমি গল্পটি দিয়ে আপনাদের সবাইকে নামাজের দাওয়াত দেওয়ার ক্ষুদ্র চেষ্টা করলাম মাত্র। বোনরা নিয়মিত নামাজ পড়ার চেষ্টা করবেন আর ভাইয়েরা জাময়াতে’র সহিত নামাজ পড়ার চেষ্টা করবেন এটা আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ।
কারন কাল কিয়ামতের ময়দানে মহান আল্লাহ তা’আলা সর্বপ্রথম নামাজের হিসাব নিবেন।

সবাইকে মহান আল্লাহ তা’আলা প্রতিদিন কমপক্ষে ৫ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ আদায় করার তৌফিক দান করুক{আমিন}

 

  • 10
    Shares

পাঠটিকে একটি রেটিং দিনঃ
খুব খারাপ, পাঠটিকে ১ রেটিং দিনখারাপ, পাঠটিকে ২ রেটিং দিনমোটামুটি, পাঠটিকে ৩ রেটিং দিনভাল, পাঠটিকে ৪ রেটিং দিনআসাধারন, পাঠটিকে ৫ রেটিং দিন (টি ভোট, গড়ে: এ ৫.০০)
Loading...

আমাদের উৎসাহিত করুনঃ

বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে বুননকে সাহায্য করুনঃ

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। এই লেখাটি কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়



  • লেখক পরিচিতিঃ শরিফুল ইসলাম

    বুনন সম্পর্কিত তথ্যঃ 2018-05-03 07:03:20 তারিখ নিবন্ধিত হয়েছিলেন, এই পর্যন্ত প্রকাশিত লেখা সংখ্যা 19টি, মোট সংগ্রহ 770 পয়েন্ট

    আপনার ভাল লাগতে পারে

    4
    মতামত ও আলোচনা

    avatar
    2 আলোচনা
    2 আলোচনায় উত্তরগুলো
    0 অনুসরন করেছেন
     
    সাম্প্রতিক প্রতিক্রিয়া
    আলোচিত মতামত
    3 মতামত প্রদানকারী
    শরিফুল ইসলামশাশ্বত ভৌমিকসান সাম্প্রতিক মতামত প্রদানকারী
    শাশ্বত ভৌমিক
    সদস্য

    Great

    সাইফুল ইসলাম সান।
    সদস্য

    অসাধারণ ভাই খুব ভালো লাগছে।