বুঝিনি

বিচ্ছিন্ন বালুচরে ঘড় বেঁধে কারা যেন থাকে
খুব নির্জন ধু ধু বাতাসের বিপরীতে ,

পিছুটান ছিল যে নাবিকের
আর ছিল প্রিয়ার বিদায়ী স্পর্শ ঠোটে ,
সাগরের অসীম পুর্নতায় সে স্বরন করে
তার চুল, তার চোখ , তার হাসি ,
আর প্রিয়ার প্রনয় ক্ষনের লাজুক মুখ …

সে নাবিক একদিন পৌছায় সেই দ্বীপে
যেখানে কারা যেন বাস করে ,
বালুকা বেলায় ছোট্ট ঘড়ে সে উকি দেয় …
সে আর কাউকে বলেনা কি দেখেছে ,
সে ফিরে চলে ,
নিজের প্রতিটা পদচিন্হের অনুসরন করে ,
কেউ একজন দিন গুনছে ,
নাবিকের পথ চেয়ে ,
নাবিক ফিরে চলে ….


আমাদের উৎসাহিত করুনঃ




সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। এই লেখাটি কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয় ।

লেখক সম্পর্কেঃ

বুনন সম্পর্কিত তথ্যঃ