তুমিময় ভালবাসানামা

অন্ধকার আকাশ মেতেছে যখন নতুনের উন্মাদনায়
আতশবাজির খেলায়, ফানুস উড়ানোর মেলায়।
আমি তখন লিখতে বসেছি,
হাতে রঙিন কলম, নতুন ডায়রির সূচনা পৃষ্ঠায়।
নতুন কিছু। নয় উন্মাদনায় ঘেরা, পাগলামোতে ভরা
নিছক কল্পনার তুলিতে তোমায় অঙ্কনের চেষ্টা।

তুমি দেখতে কেমন? ফর্সা না শ্যামলা নাকি ধূসর বর্ণের?
সে আমার জানা নেই।
শুধু অনুমানে বলতে পারি, তুমি রূপবতী, সঙ্গে গুণবতীও।

তুমি কি আমারই মতো হাসতে ভালবাসো?
জানা নেই আমার।
তবে সে হাসিতে মুক্তা ঝরে, হৃদয়ে বয়ে যায় শীতল প্রবাহ
ভগ্ন হৃদয় জোড়া পায় অদৃশ্য মোহমায়ায়।
সে হাসিতে পরাজিত,
সকল মান-অভিমান-অহংবোধ।

তুমি কি কাঁদতে ভালবাসো?
জানিনি যে আমি।
কত রকমের, কত রঙের কান্না
ভালবাসার কান্না, বিরহের কান্না, হাসির কান্না, অনুরাগের কান্না।

তুমি কি ভালবাসতে ভালবাসো?
মুচকি হেসে কোথায় যাচ্ছ? শুনবে না বাকিটা?
সৃষ্টিকর্তার পূর্ব ধার্য বন্ধনে আবদ্ধ আমরা
মোহহীন, স্বার্থহীন, লোভহীন, হিংসাহীন, ঈর্ষাহীন
সম্পর্কের নামই তো ভালবাসা।
আমার মাঝে তুমি,
তোমার মাঝে আমি ‘র অন্যনামও ভালবাসা।

তুমি কি এখন ভাবছো আমায় নিয়ে?
কাগজের নয়, খুঁজে ফিরো হৃদয়ের ডিকশনারিতে,
সেখানে গোটা অক্ষরে লেখা রয়েছে,
তুমিময় ভালবাসানামা।


আমাদের উৎসাহিত করুনঃ




সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। এই লেখাটি কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয় ।

লেখক সম্পর্কেঃ

বুনন সম্পর্কিত তথ্যঃ