মায়ের আদর

কেউ আর আগের মত করে ডাকে না,
বাড়িতে যেমন করে বলত মা।
কেউ আবেগময় গলায় বলে না খেতে আয়,
আমি গরম সুরে বলতে পারি না সময় নাই।

বলতে পারি না চেঁচিয়ে জমা আছে অনেক পড়া,
পড়াই এখন বাঁচা মরা।
খাব আমি সব পড়া শেষ করে,
রেখে দাও খাওয়ার টা বাক্স ভরে।।
রান্নাঘরে আসি যখন বারোটার পরে,
শব্দ শুনে মা আসে তাড়াহুড়ো করে।
কই এখনত কেউ বসে থাকে না,
আধঘুম চোখে খেতে দেয় না।।

হয় যদি ঔষুখ কোনা করণে,
মা জীবন ভরে দেয় হাজার বারণে।
গত চারদিন জ্বর ছিল আমার,
কেউ ত ওষুধ খেতে বলে নি একবার।।

আজ আমি বুঝতেছি হাড়েহাড়ে,
মা বলে কারে।
মা ই হলো পৃথিবী তে একজনা,
যার সাথে হয় না কারো তুলনা।।

আজ যদি আমি না থাকতাম বাইরে,
বুঝতাম না মায়ের আদর বলে কারে।
প্রতি ক্ষণে ঘটা ঘটনা,
দেয় মায়ের আদরের বর্ণনা।।
আমি মনে একটা জিনিস ই চাই,
মায়ের আদর যেন জীবনভর পাই।।
——০——-


আমাদের উৎসাহিত করুনঃ




সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। এই লেখাটি কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয় ।

লেখক সম্পর্কেঃ

বুনন সম্পর্কিত তথ্যঃ