সীমন্তনী

তোর বাহু বন্ধনে আছে অগ্নি
হোম, যম, যত ধ্বংসলীলার উর্দি।

তুই মাতৃ, তব শিখায় রূধিরাগ্নি
তুই কালী কালী মহাকালী
তোর রক্তচোখে যত অমঙ্গলের বলী
তুই শ্যামা, তুই হেমা
তোতেই আছে শত যুগের জমা
সৃষ্টি, স্থিতি, ধ্বংসারতি আর ক্ষমা।

তুই সেই গঙ্গা
যাকে ধারন করেছে শিব উগ্রনৃত্যদেবতা।

তুই চঞ্চল, তুই শান্ত, তুই নির্মল
তুই সদা করেছিস পুরুষের তরবারি স্বচ্ছল।
তুই শরিরী, অশরিরী
তুই যত পাপ দানকারী বনিতা
আবার তুই-ই পাপমোচনকারী গঙ্গা।

তুই মায়া তুই কায়া
তোর মাঝেই যত শুদ্ধ অশুদ্ধ ছায়া।

তুই আশা, ভাষা, জ্যোতি, ব্রহ্ম ছায়া
তুই দিতী, অদিতী, শতরূপা
তোর থেকেই ত্রিদশ, আত্মজ, জরা
তোর স্থিরতা ধ্বংস করে যত
শুভ, অশুভ, কায়া, ক্লিব, হীনতা।

উন্মত্ব করে ধ্বংসের উগ্র ভগবান
তুই পুরুষের স্থিরতার কেন্দ্রস্থন।.

তোর কান্নার ধ্বনী
কাঁপিয়ে তুলে খোদার আরসখানী।

তুই যে মা, গৌরি, বিধাতা
তুই তনয়া, ভাসিনী, কান্তা
তোর থেকেই শুরু
তোতেই সব নিরবতা।


আমাদের উৎসাহিত করুনঃ




সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। এই লেখাটি কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয় ।

লেখক সম্পর্কেঃ

বুনন সম্পর্কিত তথ্যঃ